Bhalukanews.com

শরিকের উপার্জন হারাম হলে কি কোরবানি হবে?

ভালুকা নিউজ ডট কম: অতি নিকটেই কুরবানীর ঈদ। নামাজ, রোজা, হজ, জাকাত, পরিবার, সমাজসহ জীবনঘনিষ্ঠ ইসলামবিষয়ক প্রশ্নোত্তর অনুষ্ঠান ‘আপনার জিজ্ঞাসা’। জয়নুল আবেদীন আজাদের উপস্থাপনায় বেসরকারি একটি টেলিভিশনের জনপ্রিয় এ অনুষ্ঠানে দর্শকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন বিশিষ্ট আলেম ড. মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ।

প্রশ্ন : আমরা তো গরু কোরবানি দেই সাত ভাগে। এই সাত ভাগের অন্যান্য শরিক যাঁরা আছেন, তাঁদের যদি কারো অসৎ পথে রোজগার থাকে বা ঘুষখোর হয় অথবা আমি জানি না তাঁর উপার্জন কি উপায়ে হচ্ছে? এ রকম কেউ যদি শরিক থেকে থাকেন, তাহলে আমার সেই কোরবানিটা কি আদায় হবে?

উত্তর : যার সম্পর্কে জানেন না, সেটা নিয়ে আর ঘাটানোর দরকার নেই। এতটুকুই যথেষ্ট যে, আপনি জানেন না। তাহলে আপনি মনে করবেন যে, তাঁর উপার্জন হালাল, হারাম নয়। সন্দেহ করার কোনো প্রয়োজন নেই। এটি জায়েজ এবং কোরবানি হয়ে যাবে।

যার ব্যাপারে নিশ্চিত হয়েছেন যে তাঁর উপার্জন হারাম, আর ততদিনে যদি আপনার কোরবানি হয়ে যায় তাহলে আপনার কোরবানি হয়ে গেছে। আর যদি কোরবানির আগেই নিশ্চিত হন, তাহলে চেষ্টা করবেন শরিক থেকে তাঁকে সরিয়ে দেওয়ার জন্য। কিন্তু যদি সেটা সম্ভব না হয়, তাহলে আপনার কোরবানি হয়ে যাবে, কোনো অসুবিধা নেই। যেহেতু হয়তো আগে থেকে চুক্তি হয়ে গেছে, এখন সরানো সম্ভব হচ্ছে না। আপনার অংশ যদি শুদ্ধ থাকে, তাহলে আপনার কোরবানি হয়ে যাবে।

*

*

Top