Bhalukanews.com

সৃষ্টি রহস্য প্রজাপতি গার্ডেন সাফারী কিংডম

এস এম সোহেল রানা-গাজীপুর:- শিশু বান্ধব প্রজাপতি, আনন্দের প্রতিক প্রজাপতি, পরিবেশ বান্ধব প্রজাপতি বিনোদনের প্রতীক প্রজাপতি, শুভ পরিনয়ে প্রজাপতি, অভিসারে প্রজাপতি, মঙ্গলা চরনে প্রজাপতি,অনেক ভাবেই বিশ্বে আলোচনায় প্রজাপতি। আর এই প্রজাপতির জন্ম রহস্য উন্মোচন  করে আপনার সামনে তুলে ধরেছে বঙ্গবন্ধু সাফারী পার্কের প্রজাপতি গার্ডেন।
সাফারী কিংডমের এ অংশে মাএ ত্রিশটাকা টিকিটে  দেখতে পাচ্ছেন তিনটি ইভেন্ট। যার মধ্যে প্রজাপ্রতি পার্ক ও ফেন্সি কার্প গার্ডেন এবং দুইটি বিশাল মিউজিয়াম। গার্ডেনে রয়েছে গ্রামীন বাঁশের সাঁকো ও স্ব বান্ধবে নিরিবিলি পরিবেশে বসে আড্ডা দেওয়ার স্থান । proja poti garden (5)
তিন বছর যাবৎ কর্মরত, জ্যুলজির ছাত্র রবিন চন্দ্র জানান, চারটি ধাপে প্রজাপতি হয়। প্রজাপতি থেকে প্রজাপতি জন্ম হয় না। প্রথমে প্রজাপতি পাতায় ডিম পাড়ে। ডিম থেকে বিছা বা শুঁয়োপোকা হয়। এই বিছাটি পাতা খেয়েই বড় হয়ে যায়। যখন পাতা খাওয়া ছেড়ে দেয় তখন এদের মুখে এক প্রকার আঠালো জাতিয় লালা দিয়ে পিউপা বা মুককিট তৈরি করে। যা প্রাকৃতিক রং ধারন করে তার চির শত্র“ পাখী ফরিং কে ধোকা দেওয়ার জন্য। এভাবে বিছা আঠাতে লেগে থাকে ছয় থেকে সাতদিন । ইতিমধ্যে  বিছার ভিতরে বিভিন্ন রং বে রং পাখা  জন্ম লাভ  করে বিছাটি ফেটে যায়। ঠিক সাপের ছলম বা খোসার  মত বিছাটি পড়ে থাকে আর প্রজাপতি বের হয়ে আকাশে উড়ে।
এক কথায় প্রজাপতির জীবন রহস্য হলো, ডিম থেকে শুক্কীট। শুক্কীট থেকে মুক্কীট। মুক্কীট থেকে প্রজাপ্রতির জন্ম লাভ করে।  এরা বেশির ভাগ এক সপ্তাহ থেকে এক মাস বাচেঁ। কোন কোন প্রজাপতি সর্বোচ্চ ১ বছর বেঁচে থাকে।
সকল প্রকার গাং ফরিং  প্রজাপতির ডিম ও শুক্কীট খায়। এটা খাদ্য চক্রের নিয়ম ।

proja poti garden (3)

আরো জানাযায়, প্রানী জগতে এ পর্যšত পৃথিবীতে বিশ হাজার প্রজাপতির সন্ধান মিলেছে। প্রজাপ্রতির ডানার আকার আকৃতি, রঙ্গ ও নকশার রয়েছে হাজারো বৈচিত্র। পৃথিবীতে হাফ ইঞ্চি থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ১০ইঞ্চি বড় প্রজাপতি রয়েছে । এদের থাকার কোন নির্ধারিত বাসস্থান নাই। ঝোপঝাড়ে,ভবনের ফাকা জায়গায় বিচরন করে। এদের খাবার হলো মধু, পাকা ফলের রস, মাটি বালুতে তরল পদার্থ ইত্যাদি।
বেশির ভাগ প্রজাপতি দিনের বেলায় একা একা বা দলবদ্ধ ভাবে উড়ে বেড়ায় আর খাবার সংগ্রহ করে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রজাপতি আচরনে ভবিষৎ ভাল মন্দেও খবরাখবর বয়ে আনে বলে বিশ্বাস করে।
চলে আসুন, ঘুড়ে যান সকাল সন্ধ্যা স্ব বান্ধবে,স্ব পরিবারে গাজীপুর জেলার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারী পার্কের প্রজাপ্রতি গার্ডেন ।

*

*

Top