Bhalukanews.com

মহারশি নদীতে বেড়িবাধ নির্মাণ না করায় এলাকাবাসীর ক্ষোভ ঝিনাইগাতীতে পাহাড়ী ঢলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতিসহ নিন্মাঞ্চল প্লাবিত

মুহাম্মদ আবু হেলাল, ঝিনাইগাতী ঃগত দ’ুদিনের টানা ভারী বর্ষণ ও ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের তোড়ে শেরপুরের ঝিনাইগাতীর সদরসহ প্রায় ১৬টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এতে এলাকাবাসীদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সδার হয়েছে। শনিবার ভোররাত ৪ঘটিকার সময় উপজেলার মহারশি নদীর রামেরকুড়া বেড়িবাধটি ভেঙ্গে উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন অফিস সহ সদর বাজার প্লাবিত হয়। এতে বাজারের বেশীর ভাগ ব্যবসীদের মালামালের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়। বিশেষ করে মসজিদ রোড, মধ্যেবাজার ও কাচা বাজারের ব্যবসায়ীদের মালামাল প্রায় সম্পূণ নষ্ট হয়ে গেছে। এছাড়া আকস্মিক পাহাড়ী ঢলের ফলে পুরো এলাকার পুকুরের মাছ ভেসে যায় এবং উঠতি রোপা আমনের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। প্লাবিত গ্রামগুলো হচ্ছে, ঝিনাইগাতী, রামেরকুড়া, দিঘীরপাড়, দিঘীরপাড়চতল, বনগাও, মাটিয়াপাড়া, কালীনগর, সারিকালীনগর, দড়িকালীনগর, সুরিহারা, দাড়িয়াপাড়, পাগলারমুখ, হাতিবান্ধা, স্লুইসগেইট ও বনগাও চতল ও উত্তর কান্দুলী। ঢলে কবলিত এলাকাগুলো ইউএনও ফারহানা করিম, উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম বাদশা, ওসি বিপ্লব কুমার বিশ^াস, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আবু তাহের, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম মক্কু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লাইলী বেগম, সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন চাঁন পরিদর্শন করেছেন। এখন পর্যন্ত হতাহতের কোন খবর পাওয়া যায়নি। সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন চাঁন ঝিনাইগাতী সদরের আশপাশের গ্রামের বন্যায় কবলিত পরিবারগুলোর মধ্যে চিড়া মুড়ি বিতরণ করেছেন। উল্লেখ্য যে, রামেরকুড়া বেড়িবাধটি গত প্রায় ৪বছর পূর্বে পাহাড়ী ঢলে ভেঙ্গে গেলেও অদ্যবধি পর্যন্ত সংস্কারের কোন উদ্দ্যোগ নেওয়া হয়নি। এছাড়া ঝিনাইগাতী বাজারের গরুহাটি ও কাচারী অফিস সংলগ্ন পয়ঃনিস্কাশনের জন্য ড্রেন দুটির পারি বন্ধকরণের কোনরুপ ব্যবস্থা না থাকায় হঠাৎ করে বাজারের মধ্যে পানি ডুকে পরায় কোটি টাকার উপরে রাজস্ব আদায়ের ঝিনাইগাতী বাজারের ব্যবসায়ারা প্রতি বছর ব্যাপক ক্ষতির সন্মুখীন হচ্ছে। এর পরেও স্থানীয় প্রশাসন বা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বেড়িবাধ নির্মাণ এবং ড্রেন দুটি সংস্কারের কোন উদ্দ্যোগ নিচ্ছেন না। যে কারণে এলাকায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ও ব্যবসায়ীদের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভ বিরাজ করছে। এলাকাবাসী মহারশি নদীর রামেরকুড়া বেড়িবাধ নির্মাণ ও বাজারের প্রধান ড্রেন দুটি সংস্কারের জন্য সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট দাবী জানিয়েছেন।

*

*

Top