Bhalukanews.com

শ্রীপুরে শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীকে বেত্রাঘাতের অভিযোগ

গাজীপুর প্রতিনিধি: শ্রীপুরে বিন্দুবাড়ী গাউসুল আজম মাদ্রাসার বাংলা বিভাগের শিক্ষক বিল্লাল হোসেনের বিরুদ্ধে মাদ্রাসা ছাত্রীকে বেত্রাঘাতের অভিযোগ উঠেছে। বেত্রাঘাত করে আহত করায় রোববার পাঠদানে অংশ নিতে পারেনি এই শিক্ষার্থী।
শনিবার মাদ্রাসায় ৭ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী সাবিহা আক্তারকে বেত্রাঘাত করা হয়। সাবিহা বিন্দুবাড়ি জিওসি গ্রামের আব্দুস সামাদের মেয়ে।
শিক্ষার্থীর স্বজনদের অভিযোগ গত শুক্রবার থেকে জ্বরে আক্রান্ত হয় সাবিহা আক্তার। অসুস্থ অবস্থায় শনিবার মাদ্রাসা পাঠদানে অংশ নেয় সে। হঠাৎ করে জ্বরের পরিমাপ বেড়ে যাওয়ায় সহপাঠী এক ছাত্রীকে নিয়ে সে পাশের এক বাড়িতে মাথায় পানি দিতে যায়। এ সময় প্রতিষ্ঠানের বাংলা বিভাগের শিক্ষক বিল্লাল হোসেন মাদ্রাসা ছেড়ে অন্যের বাড়িতে যাওয়ার কৈফিয়ত চান। এসময় সাবিহা তার অসুস্থতার কথা শিক্ষককে অবহিত করার পর অফিস সহায়কের মাধ্যমে অফিস থেকে বেত এনে অন্যান্য শিক্ষার্থীদের সামনে বেত্রাঘাত করলে আহত হয়ে পরে সাবিহা আক্তার। পরে সহপাঠিদের সহায়তায় সে বাড়ি ফেরে।
শিক্ষার্থীর মামা আতিকুল ইসলাম জানান, এ ঘটনার পর আহত সাবিহা রোববার মাদ্রাসার পাঠদানে অংশ নিতে পারেননি। আমরা অভিভাবকেরা আজ মাদ্রাসায় গিয়ে অধ্যক্ষ সহ সবাইকে সাবিহাকে বেত্রাঘাত করার বিষয়টি অবহিত করলে তাঁরা এ ঘটনার সুষ্ঠু সমাধানের আশ্বাস দিলে আমরা বাড়ি চলে আসি।
অভিযুক্ত শিক্ষক বিল্লাল হোসেনের বক্তব্যের জন্য তাঁর মুঠোফোনে একাধিক বার যোগাযোগ করেও তাঁকে পাওয়া যায়নি। মাদ্রাসার অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) আসাদুজ্জামান এ বিষয়ে বক্তব্য দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে মাদ্রাসায় যোগাযোগের পরামর্শ দেন।
মাদ্রাসার পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি কমর উদ্দিন জানান, এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি। আগামী শনিবার পরিচালনা কমিটির সভা আহবান করা হয়েছে, ওই সভায় পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।
শ্রীপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম জানান, এ বিষয়ে আমাদের কাছে কেউ অভিযোগ করেনি, তবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্র-ছাত্রীদের শারিরীক নির্যাতন করা বেআইনি। এমন কোন ঘটনা ঘটে থাকলে তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

*

*

Top