Bhalukanews.com

কমিটিতে হিন্দু থাকায় ওরশ বন্ধ !

এফ এম আমান উল্লাহ আমান,গাজীপুর : গাজীপুর শ্রীপুরে এক পাগলা বাবার মাজার শরিফের পরিচানা পর্ষদের সহ-সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে দুই হিন্দু ধর্মাবলীর নাম দেয়ায় বার্ষিক ‘ওরশ মোবারক-১৭’ বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ।
গতকাল রোববার বেলা ১২টার দিকে উপজেলার বরমী ইউনিয়ন গাড়ারন মধ্যপাড়া গ্রামে থাকা আব্বাস আলী পাগলার মাজার শরিফে গিয়ে ‘ওরশ মোবারক’ বন্ধ করে দেয় শ্রীপুর থানা পুলিশ। অনুষ্ঠান মালায় ছিল, কোরআনা তেলাওয়াত, জিকির আজগার, তবারক বিতরণ ও বাউল গান।
জানা যায়, মাজার শরিফে ৩১ ডিসেম্বর ও ১ জানুয়ারী দু’দিন ব্যাপি ২৭তম ওরশ মোবারকের আয়োজন করে মাজারের খাদেম সমশের আলী পাগল। এ অনুষ্ঠানের নিময়ন্ত্রণ পত্রে সহ-সভাপতি পদে শ্রী মঙ্গল সরকার ও সাধারণ সম্পাদক পদে শ্রী রতন বসুর নাম দেয়া হয়। এতে এলাকায় ব্যাপক চ্যাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। স্থানীয় ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা কয়েক দফায় মাজার শরিফে গিয়ে এ ধরণের নাটক বন্ধ করতে বলে। এসময় কথা কাটাকাটি হয় এলাকাবাসীর সাথে ওই মাজারের পরিচলনা পর্ষদের সভাপতি মো.আজিজ ফালুর। এমন উত্তেজনা পরিস্থিতি সামাল দিতে শ্রীপুর থানা পুলিশের কয়েকটি টিম মাজারে যায়। পুলিশ দেখে মাজার থেকে খাদেমসহ অনেকেই দৌঁড়ে পালিয়ে যায়।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, এখানে ওরশের নামে প্রতি রাতে গাঁজাসহ বিভিন্ন মাদকদব্য সেবন করে কতিপয় কিছু লোকজন। তাঁদের সাথে এলাকার যুবকরা অনেক সময় নেশায় জড়িয়ে পড়ে। এ ভন্ডামি বন্ধ করতে প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তাঁরা।
শ্রীপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো.শেখ সাদী বলেন, মুসলমান বাসিন্দারের সাথে মাজার কমিটির লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষের আশঙ্কা থাকায় মাজারের এ বার্ষিক ওরশ করতে বাধা দেয়া হয়েছে। এ সমস্যা সমাধানের আগে এখানে কোন রকম জমায়েত করতে দেয়া হবে না। মাজারের সভাপতি মো.আজিজ ফালুর সাথে তাঁর মোঠোফোনে যোগাযোগ করতে গেলে ফোন নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়।

*

*

Top