Bhalukanews.com

পীরগঞ্জে ভূমিহীন জায়েদার আকুতি `হামার জমি নাই হামাক তুলি দিলে কোনটে যামো’

1

পীরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি: রংপুরের পীরগঞ্জে এক ভূমিহীন বিধবা দীর্ঘ ৪৩ বছর ধরে জমি দখল ভোগ, বসত বাড়ী নির্মাণ করে বসবাস করে আসলেও, উপজেলা প্রশাসন নিজেদের দাবী করায়, দিশেহারা হয়ে পড়েছে ওই পরিবারটি। প্রশাসনের উচ্ছেদের পাঁয়তারা বন্ধের জন্য, ভূক্তভোগী পরিবারটি প্রধানমন্ত্রী ও ভূমি মন্ত্রী সহ বিভিন্ন দপ্তরের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। মামলার বিররণে জানা গেছে, ‘ক’ তফশীল বর্ণিত দাগের সম্পত্তির মালিক ছিলেন, বাংলাদেশ সরকার- বাহাদুর পক্ষে ১নং প্রতিপক্ষ জেলা প্রশাসক রংপুর, ঘটনার বিবরণে বর্ণিত উপজেলা ইউনিয়ন ভূমি অফিসে ইউনুছ মিয়া নামে একজন সহকারী তহশীলদার নি¤œ বেতনে চাকরী করাকালীন সময়ে নালিশী জমি এস.ডি.ও. কেস নং- ঢ১১২৫০৭/৭২-৭৩, সি কেস নং- ঢ১১৪৫/৭২-৭৩, ২৭/১০/৭৫ইং তারিখের ১৩৮১২নং কবুলিয়াতে ১৩৭৮-১৩৯২ সনের ৩০ চৈত্র তারিখ পর্যন্ত ১৫ বছরের মেয়াদে বন্দোবস্ত দেন। ১৯৭৬ সাল থেকে ইউনুছ মিয়া ওই জমিতে ৩টি টিনের ঘর নির্মাণ করিয়া সরকারকে খাজনা প্রদান করে আসছেন। সম্পত্তি বন্দোবস্ত গ্রহণের তারিখ হইতে অদ্য পর্যন্ত ইউনুছ মিয়া বসবাস করে আসলেও ২৪/০২/২০০০ইং সালে চাকরী করাকালীন সময়েই মৃত্যু বরণ করেন। পরবর্তীতে নালিশী সম্পত্তি তার স্ত্রী জায়েদা খাতুন পৃথক খতিয়ান নং- ১, হোল্ডিং নং- ৬৩৫ প্রস্তুত ও প্রচারিত করে, উক্ত দাগে ৩৭৮নং ডি.পি. জায়েদার নামে প্রস্তুত হয়। অপর দিকে ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান ২৯/০৪/২০১৪ইং তারিখে জায়েদা খাতুনের নামে এস.এ খতিয়ান নং- ১, এর বি.এস- ২০৭নং দাগে ডাঙ্গা জমি ০৫ শতক জমি রেকর্ডে রেকর্ড ভূক্ত হয়। অভিযোগ মতে ২৫/০৪/২০১৭ইং তারিখে উক্ত জমি থেকে জায়েদা খাতুকে উচ্ছেদ করার জন্য প্রশাসন উঠেপড়ে লাগে এবং ০৫/০৬/২০১৭ইং তারিখে জায়েদার বাড়ী ভাঙ্গার জন্য গেলে, জায়েদার পরিবারের লোকজন বাঁধা প্রদান করে। একপর্যায়ে জায়েদা খাতুন নিরুপায় হয়ে জেলা রংপুরের পীরগঞ্জ থানার সহকারী জজ আদালত রংপুরে মামলা নং- ৬৬/১৭, তারিখ- ০৭/০৬/২০১৭ইং দায়ের করেন। যাহার বিবাদী বাংলাদেশে সরকারের পক্ষে জেলা প্রশাসক রংপুর ও পীরগঞ্জ ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা, লিয়াকত আলী। এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কমল কুমার ঘোষ জানান, বর্ণিত সম্পত্তিটি তহশীল অফিসের। নির্দিষ্ট ভাবে কাউকে জমিটি দেওয়া হয়নি। পীরগঞ্জ ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা, লিয়াকত আলী জানান, তর্কীত সম্পত্তির সি.এস মালিক ছিলেন জমিদার কালিপদ চক্রবর্তী ও এস.এ খতিয়ানের মালিক ছিলেন শৈলেন্দ্রনাথ চক্রবর্তীগং। পরবর্তীতে এস.এ মালিক গণের ওয়ারিশ না থাকায় ৭/৮০-৮১নং মিস কেস মূলে লাওয়ারিশ হিসেবে জমিটি খাস খতিয়ান ভূক্ত হয়। উক্ত সম্পত্তিতে উপজেলা ভূমি অফিস ও রায়পুর ইউনিয়ন ভূমি অফিস অবস্থিত। ভূমিহীন অসহায় জায়েদা খাতুন কান্না জড়িত কন্ঠে প্রতিবেদক বলেন হামরা গরীব মানুষ, এটি থাকি হামাক তুলে দিলে, হামরা এখন কোনটে যামো। বিষয়টির ব্যাপারে অসহায় জায়েদা খাতুন সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তাগণ সহ উপজেলা সুধীজনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

*

*

Top