Bhalukanews.com

বদলে গেল ৫ জেলার ইংরেজি নামের বানান

বাংলা নামের সঙ্গে সামঞ্জস্য আনতে চট্টগ্রাম, বরিশাল, কুমিল্লা, যশোর ও বগুড়া জেলার নামের ইংরেজি বানান পরিবর্তন করেছে সরকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গতকাল সোমবার তার কার্যালয়ে প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির (নিকার) সভায় এই পাঁচ জেলার নামের ইংরেজি বানান পরিবর্তনের প্রস্তাব অনুমোদন দেয়।

এছাড়া ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন করার প্রস্তাব অনুমোদন করেছে নিকার। পাশাপাশি প্রতি বছর ১ মার্চ ‘জাতীয় ভোটার দিবস’ হিসেবে পালনের ঘোষণা দিয়েছে সরকার। আর আলাদাভাবে মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার জন্য ‘সিলেট মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় আইন-২০১৮’-এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। সভা শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) এন এম জিয়াউল আলম এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, Chittagong এর পরিবর্তে বানান Chattogram, Comilla এর পরিবর্তে Kumilla, Barisal এর পরিবর্তে Barishal, Jessore এর পরিবর্তে Jashore এবং Bogra এর পরিবর্তে Bogura করা হয়েছে। নতুন বিভাগ, জেলা, উপজেলা, থানাসহ প্রশাসনিক ইউনিট গঠনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়ে থাকে নিকার সভায়। একই সঙ্গে নাম পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে নিকার। প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন এই কমিটির আহ্বায়ক।

ময়মনসিংহ পৌরসভাকে সিটি করপোরেশনে উন্নীত করার প্রস্তাবে সায় দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এন এম জিয়াউল আলম জানান, ময়মনসিংহ সদর উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের মধ্যে বয়ড়া ও আকুয়া ইউনিয়নের পুরোটা এবং খাগডহর, চরঈশ্বরদিয়া, দাপুনিয়া, ভাবখালী, সিরতা ও চরনিলক্ষীয়া ইউনিয়নের আংশিক এলাকাকে ময়মনসিংহ পৌরসভায় অন্তর্ভুক্ত করে এই সিটি করপোরেশনের এলাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের আয়তন হবে ৯১ দশমিক ৩১৫ বর্গকিলোমিটার। প্রতি বর্গকিলোমিটারে জনসংখ্যার ঘনত্ব হবে ৫ হাজার ১৬৭ জন। আর জনসংখ্যা ৪ লাখ ৭১ হাজার ৮৫৮ জন।

জিয়াউল জানান, কুমিল্লা জেলার নবসৃষ্ট লালমাই উপজেলার সদর দফতর স্থাপনের স্থান পরিবর্তনের প্রস্তাবও অনুমোদন করেছে নিকার। আগে সদর দফতরের স্থান ছিল ৪৭ নম্বর জয়নগর মৌজায়, নতুন করে ৩৬ নম্বর উত্তর ফতেপুর মৌজায় সদর দফতরের স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। ৪৭ নম্বর জয়নগর মৌজায় কৃষি জমি ছিল জানিয়ে জিয়াউল বলেন, জয়নগর মৌজা প্রধান সড়ক থেকে তিন কিলোমিটর দূরে ছিল। কিন্তু উত্তর ফতেপুর মৌজা রাস্তার কাছে এবং ওই জায়গায় ইটভাটা রয়েছে।

এছাড়া ১ মার্চকে ভোট দিবস উদযাপনের সিদ্ধান্ত নিয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এ সংক্রান্ত পরিপত্রের ‘খ’ ক্রমিকে অন্তর্ভুক্তির প্রস্তাব অনুমোদন দেন তিনি। এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব জিয়াউল আলম বলেন, গণতন্ত্র, নির্বাচন এবং ভোটাধিকারের বিষয়ে তরুণ সমাজকে উদ্বুদ্ধ করতেই দিসবটি পালন করা হবে।

বছরের প্রথম দিন অথবা জুলাইয়ের ৭ তারিখকে জাতীয় ভোটার দিবস হিসেবে পালনের নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়ে মন্ত্রিসভার অনুমোদনের জন্য পাঠিয়েছিল নির্বাচন কমিশন। তার মধ্যে ১ মার্চকেই বেছে নিল সরকার।

*

*

Top