বিশ্বকাপের দু’দিন আগেই কোচ হিসেবে বর্তমান স্পেন কোচ হুলেন লোপেতেগুইয়ের নাম ঘোষণা করে রিয়াল মাদ্রিদ। সঙ্গে সঙ্গে ঝড় ওঠে ফুটবল দুনিয়ায়। বিশ্বকাপের ঠিক দু’দিন আগে এভাবে জাতীয় দলের একজন কোচের নাম ঘোষণা করে রিয়াল মাদ্রিদ মহা ভুল করে ফেললো না তো! তাহলে কী লোপেতেগুই বিশ্বকাপে সঠিকভাবে মনযোগ দিতে পারবেন?

২৪ ঘণ্টায় তুমুল আলোচনা। এরই মধ্যে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে, বিশ্বকাপের একদিন আগেই বহিষ্কার করা হতে পারে স্পেন কোচকে। অবশেষে সেই গুঞ্জনই সত্যি পরিণত হলো। স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশন বিশ্বকাপের আগেই তাদের কোচকে বহিষ্কার করলো।

বিশ্বকাপের অন্যতম ফেবারিট স্পেন। ব্রাজিল, জার্মানির পর ফেবারিটের তালিকায় তিন নম্বরেই সবাই রাখছে ২০১০ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের। কোচ হুলেন লোপেতেগুইয়ের অধীনে দুর্দান্ত সময় পার করছিল স্প্যানিশরা। বিশেষ করে, মাস দুয়েক আগে যেভাবে আর্জেন্টিনার মতো দলকে ৬ গোল দিয়েছিল স্প্যানিশরা, তাতে বিশ্বকাপ জয়ের অন্যতম দাবিদার তারা। হুলেন লোপেতেগুইকেও সেরা কোচ হিসেবে স্বীকৃতি দিচ্ছিল সবাই।

কিন্তু মাথায় বাজ পড়ার মতো খবরটা মঙ্গলবারই দিয়ে বসে রিয়াল মাদ্রিদ। জিনেদিন জিদানের উত্তরসূরি হিসেবে স্পেনের বর্তমান কোচের নামই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয় তারা। এই ঘোষণাটাই সব সর্বনাশ ডেকে আনে। স্পেন ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি লুই রুবিয়ালেস বিষয়টাকে কোনোভাবেই মেনে নিতে পারেননি। মোট কথা, খুব চটে গিয়েছিলেন তিনি।

যার ফলশ্রুতিতে আকস্মিক সংবাদ সম্মেলন ডাকেন তিনি। এই সংবাদ সম্মেলন ডাকার পরই ধারণা করা হচ্ছিল, বিশ্বকাপের একদিন আগেই বহিষ্কার করা হতে পারে স্পেন কোচকে। শেষ পর্যন্ত সে ধারণাই সত্যি প্রমাণিত হলো। স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি, রিয়াল মাদ্রিদের কোচ হিসেবে লোপেতেগুইয়ের নাম ঘোষণার সময়টা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন। লোপেতেগুই রিয়ালের কোচ হতেই পারেন; কিন্তু বিশ্বকাপ যখন একেবারে দোরগোড়ায়, মাত্র দু’দিন পর বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামবে স্পেন, তার আগেই কেন রিয়ালের কোচ হিসেবে নাম ঘোষণা হবে তার?

লুই রুবিয়ালেস খুবই হতাশ এমন কঠিন একটি সিদ্ধান্ত নিতে হচ্ছে বলে; কিন্তু দলের স্বার্থে এতবড় সিদ্ধান্তটি নিতে হচ্ছে বলেই তিনি জানালেন। ২০১৮ সালের শুরুতে স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর রুবিয়ালেসের জন্য এটা ছিল কঠিন এক সিদ্ধান্ত।

অথচ, লোপেতেগুইকে বাঁচানোর জন্য খেলোয়াড়রাও অনেক চেষ্টা করেছেন। রিয়াল মাদ্রিদ এবং স্পেন অধিনায়ক সার্জিও রামোস সরাসরি কথা বলেছেন রুবিয়ালেসের সঙ্গে। দলের অন্য খেলোয়াড়রাও স্পেন ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতির সঙ্গে কথা বলেন। বিশ্বকাপ শুরুর ঠিক আগমুহূর্তে এত বড় সিদ্ধান্তটি না নেয়ার অনুরোধ জানান।

কোনো অনুরোধেরই ঢেঁকি গেলেননি রুবিয়ালেস। সংবাদ সম্মেলন ডেকে রুবিয়েলেস বলেন, ‘হুলেনকে আমরা ধন্যবাদ দিতে চাই। স্পেনের হয়ে দারুণ কাজ করেছেন তিনি। সবচেয়ে বড় কথা রাশিয়া বিশ্বকাপে স্পেন দলের সবচেয়ে দায়িত্ববান ব্যক্তিও ছিলেন তিনি; কিন্তু দুঃখের বিষয় হচ্ছে, স্পেনের কোচের পদে তাকে আর রাখতে পারছি না। আমরা বিষয়টাকে প্রতারণা হিসেবে নিচ্ছি না। তবে সমস্যা হলো, স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশনের সঙ্গে সংযোগের বিষয়ে কোনো দূরত্ব কিংবা মানসিক অনুপস্থিতিকে আমরা মেনে নিতে পারবো না। লোপেতেগুই দারুণ একজন পেশাদার ব্যক্তি। তবে প্রক্রিয়াটা কোনোভাবেই সঠিক নয়।’

রুবিয়েলেসের দাবি হচ্ছে, লোপেতেগুই যে রিয়াল মাদ্রিদের কোচ হবেন, সেটা স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশন মোটেও জানতো না। অন্তত পেশাদারিত্বের খাতিরে হলেও বিষয়টা ফেডারেশনকে জানানো প্রয়োজন ছিল। এ বিষয়টাই মেনে নিতে পারেননি রুবিয়েলেস। তিনি বলেন, ‘রিয়াল মাদ্রিদ এবং লোপেতেগুইয়ের মধ্যে সমঝোতার বিষয়টা ঘটেছে পুরোপুরি স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশনের অগোচরে। আনুষ্ঠানিকভাবে বিবৃতি দেয়ার মাত্র ৫ মিনিট আগেই আমরা জানতে পারি বিষয়টা।’

মস্কোয় ফিফা কংগ্রেসের নির্বাচনে উপস্থিত থাকতে পারেননি রুবিয়েলেস। ২০১৬ বিশ্বকাপ কোথায় অনুষ্ঠিত হবে, সে সম্পর্কে ভোটাভুটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। সেখানে অংশ নিতে পারেননি স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি। একটি প্লেন নিয়ে মস্কো থেকে চলে আসেন মাদ্রিদে। তিনি বলেন, ‘একটি প্লেন নিয়ে আমি মস্কো থেকে ফিরে আসি। বিশ্বকাপের স্বাগতিক নির্বাচনে ভোট পর্যন্ত দিইনি। একটা প্রতিক্রিয়া আমাদের পক্ষ থেকে আসাটা স্বাভাবিক। আমি যা করতে যাচ্ছি, তার জন্য হয়তো সমালোচনার মুখোমুখি হবো। তবে, এটা নিয়ে আমি চিন্তিত নই।’

লোপেতেগুইয়ের কাজ-কর্মকেই সব কিছুর আগে প্রাধান্য দিচ্ছেন রুবিয়েলেস। তিনি বলেন, ‘জয়টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আর জয়ের জন্য একজন ভালো কোচ আরও বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তবে সবকিছুর আগে কে কীভাবে কি কাজ করছে, সেটা আরও বেশি গুরুত্বপূর্ণ। সবকিছুই হতে সঠিক পন্থায়। হয়তো বিষয়টা আমাদের জন্য খুবই কঠিন। তবে, শেষ পর্যন্ত বিষয়টা আমাদেরকে আরও বেশি শক্তিশালী করবে।’

খেলোয়াড়দের সঙ্গে কথা হয়েছে ফুটবল ফেডারেশন সভাপতির। বিষয়টা স্বীকার করে তিনি বলেন, ‘খেলোয়াড়দের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। তাদেরকে বলেছি সবকিছু সঠিকভাবে করতে। নতুন কোচ আসলেও যেন সব ঠিক থাকে, সে বিষয়ে খেলোয়াড়দের বলে দিয়েছি। বিশ্বকাপের মধ্যেই হয়তো নতুন কোচ দায়িত্ব নিয়ে নেবেন।’

বিশ্বখ্যাত স্পোর্টস টিভি চ্যানেল বেইন স্পোর্টসের সাংবাদিক তানকেরি পালমেরি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে জানান, ‘গতকালই (মঙ্গলবার) স্পেন ফুটবলের প্রধান চেয়েছিলেন লোপেতেগুইকে বহিষ্কার করতে, কিন্তু বোর্ডের অন্য সদস্যদের কারণে তৎক্ষণাৎ সিদ্ধান্ত নিতে পারেননি।’এছাড়া ১৯৮৬ এর ইংল্যান্ডের হয়ে বিশ্বকাপ খেলা গ্যারি লিনেকারও লোপেতেগুইর বহিষ্কার হওয়ার ব্যাপারে ধারণা দিয়ে টুইট করেছেন।

আইএইচএস/জেআইএম

782Shares
 Share
 Tweet
 Pin