Bhalukanews.com

নবীগঞ্জে যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভির্য্যের মধ্য দিয়ে জাকজমকভাবে ঐহিত্যবাহী রথ উৎসব

উত্তম কুমার পাল হিমেল,নবীগঞ্জ(হবিগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ
সারাদেশের ন্যায় যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভ্ীর্য্যরে মধ্য দিয়ে নবীগঞ্জ উপজেলায় ও হিন্দু ধর্মের অন্যতম উৎসব জগন্নাথ বলদেব সুভদ্রার রথযাত্রা উৎসব গতকাল শনিবার বিভিন্ন অনুষ্টানমালার মধ্য দিয়ে অনুষ্টিত হয়েছে। অনুষ্টানমালার মধ্যে ছিল গোবিন্দ প্রতিকৃতিসহ বাজার প্রদক্ষিন,দুপুরে রথ টান,বিকালে প্রসাদ বিতরন। সকাল থেকেই সনাতন ধর্ম্বামলর্ম্বী লোকজন স্থানীয় গোবিন্দ জিউড় আখড়ায় সমবেত হন। বিকাল ৩.৩০মিনিটে গোবিন্দ জিউড় আখড়া প্রাঙ্গন থেকে সহস্রাধিক ভক্তবৃন্দ রথ টেনে পশ্চিম বাজার এনে পুনরায় গোবিন্দ জিউড় আখড়ায় গিয়ে শেষ হয়। বাজারের দুপাশের বাসা-বাড়ীর নর-নারীগন রথ টানার দৃশ্য উপভোগ করেন। পরে গোবিন্দ জিউড় আখড়ায় সকল ভক্তবৃন্দের মাঝে প্রসাদ বিতরন করে শেষ হয়। রথ উৎসবের উদ্ধোধনী অনুষ্টানে উপস্থিত ছিলেন নবীগঞ্জ-বাহুবল আসনের এমপি এম এ মুনিম চৌধুরী বাবু,সিলেট-হবিগঞ্জ আসনের মহিলা এমপি এডভোকেট আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী,সাবেক এমপি শেখ সুজাত মিয়া,এডিশনাল ডিআইজি জয়দেব কুমার ভদ্র,নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলমগীর চৌধুরী,নবীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ছাবির আহমদ চৌধুরী,জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি এডভোকেট আবুল ফজল,উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ইমদাদুর রহমান মুকুল,জেলা পরিষদ সদস্য এডভোকেট সুলতান মাহমুদ,মোঃ আব্দুল মালিক, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান সেফু,রথ উযাপন কমিটির আহবায়ক সুখেন্দু রায়,উপজেলা পুজা কমিটির সাধারন সম্পাদক নির্মলেন্দু দাশ,আখড়া কমিটির সভাপতি নিখিল আচার্য্য,সাধারন সম্পাদক বিধান ধর, নবীগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র কাউন্সিলর এটিএম সালাম,উপজেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি নারায়ন রায়,সাধারন সম্পাদক ও নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক উত্তম কুমার পাল হিমেল, রামকৃষ্ণ সংঘের অর্থ সম্পাদক প্রমথ চক্রবর্ত্তী বেনু,শৈলেন কুমার দাশ,নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারন সম্পাদক সরওয়ার শিকদার,সলিল বরন দাশ,নবীগঞ্জ ডিগ্রী কলেজ ছাত্রদলের আহবায়ক অলিউর রহমান,সাবেক পৌর কাউন্সিলর যুবরাজ গোপ,কাউন্সিলর সন্তোষ চন্দ্র দাশ, সাংবাদিক ছনি চৌধুরী,মন্টু আর্চায্য, অশোক তরু দাস,পবিত্র বনিক,অমলেন্দু সুত্রধর,সাধন চন্দ্র দাশ,চারু দেব প্রমূখ। উল্লেখ্য ১৯৯৭ সালে পাক হানাদার বাহিনী নবীগঞ্জের প্রায় ২৫ ফুট উচু রথটি জ্বালিয়ে দিয়ে ধ্বংস করার ফলে পরবর্ত্তীতে অন্য একটি রথ তৈরী করে অনুষ্টান পরিচালনা করে আসছিলেন হিন্দু ধর্মাবলম্বী লোকজন। দীর্ঘ ৪৭ বছর পর প্রায় ১৬ লক্ষ টাকা ব্যয়ে এ বছরই প্রথম অত্যাধুনিক একটিরথ তৈরী করে গতকাল টেনে উদ্বোধন করা হয়েছে।

*

*

Top