Bhalukanews.com

গুরু রবিদাসজী’র ৬৪২ তম জন্মজয়ন্তীতে দিনাজপুরে বিআরএফ এর “সন্ত সম্মেলন ও রবিদাস মহাসমাবেশ-২০১৯” অনুষ্ঠিত

“বাংলাদেশ রবিদাস ফোরাম (বিআরএফ)” এর সার্বিক সহযোগিতায় ও “সন্ত শিরোমণি গুরু রবিদাস (ধাম) মন্দির কমিটি” এর আয়োজনে ২দিনব্যাপী “সন্ত সম্মেলন ও রবিদাস মহাসমাবেশ-২০১৯” অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধনী পর্ব ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকেল ৫.২০ টায় দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলার কাদিমনগর এলাকার সন্ত শিরোমণি গুরু রবিদাস (ধাম) মন্দির প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন করেন ঘোড়াঘাট উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রুসিনা সরেন। উদ্বোধনী পর্বে সভাপতিত্ব করেন সন্ত শিরোমণি গুরু রবিদাস (ধাম) মন্দির কমিটি’র সভাপতি জামলাল রবিদাস। মূখ্য আলোচকের বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ রবিদাস ফোরাম (বিআরএফ)-কেন্দ্রীয় কমিটির মহাসচিব শিপন রবিদাস প্রাণকৃষ্ণ।

প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) মোঃ আমিরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ঘোড়াঘাট উপজেলার সমাজসেবা কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল আওয়াল হোসেন, বাংলাদেশ রবিদাস ফোরাম (বিআরএফ)-কেন্দ্রীয় কমিটির সম্মাণিত উপদেষ্টা ও জয়পুরহাট জজকোর্টের আইনজীবি অ্যাডভোকেট বাবুল রবিদাস, বিআরএফ এর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি চাঁনমোহন রবিদাস, নীলফামারী জেলার বিশিষ্ট নারীনেত্রী তৌহিদা জৌতি, বাংলাদেশ রবিদাস নারী ফোরাম (বিআরডব্লিউএফ)-কেন্দ্রীয় কমিটির অন্যতম কার্যনির্বাহী সদস্য সূর্যমণি রবিদাস, ঘোড়াঘাট উপজেলা আদিবাসী উন্নয়ন সংস্থা’র সভাপতি ইন্দু মোহন মার্ডী,

সম্মাণিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ রবিদাস ফোরাম (বিআরএফ)-কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি মিলন রবিদাস (মৌলভীবাজার), যুগ্ম মহাসচিব নিরব রবিদাস, কোষাধ্যক্ষ মিলন রবিদাস (বিজিবি), স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘আমরা রবিদাস সন্তান (এআরএস)’ এর সাবেক সম্মাণিত উপদেষ্টা ও মালয়েশিয়া প্রবাসী বাবুলাল রবিদাস, বিআরএফ-রংপুর বিভাগীয় সমন্বয়কারী ও পঞ্চগড় জেলা শাখার সভাপতি উত্তম কুমার রবিদাস, গাইবান্ধা জেলা শাখার সভাপতি সুনীল রবিদাস, সাধারণ সম্পাদক খিলন রবিদাস, নীলফামারী জেলা শাখার সভাপতি বাদল রবিদাস, নারী ও শিশু বিষয়ক সম্পাদক ছবি রবিদাস, জয়পুরহাট জেলার শাখার নেতা পরেশ রবিদাস, নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলা শাখার সভাপতি বাবুলাল রবিদাস, সাধারণ সম্পাদক বিমান রবিদাস, বদলগাছী উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক কমল রবিদাস, গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি কৃষ্ণ রবিদাস, সাধারণ সম্পাদক বাবুলাল রবিদাস, বগুড়ার সোনাতলা উপজেলা শাখার নেতা সাধারণ সম্পাদক নয়ন রবিদাস, সাংগঠনিক সম্পাদক রনজিৎ রবিদাস, দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা শাখার সভাপতি জহরলাল রবিদাস, বাংলাদেশ রবিদাস ছাত্র ফোরাম (বিআরএসএফ)-গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা শাখার সহ সভাপতি রবিলাল রবিদাস, সাধারণ সম্পাদক নিতাই রবিদাস প্রমুখ।

আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন গাইবান্ধা জেলার অন্যতম রবিদাস নেতা দধিয়া রবিদাস, গাইবান্ধা রবিদাস পূজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক দিলিপ রবিদাস প্রমুখ।সমগ্র অনুষ্ঠানমালা সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ রবিদাস ফোরাম (বিআরএফ) এর কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আদুরী রবিদাস।

রাতভর গুরুপূজায় মহন্ত (পূজারী)’র দায়িত্ব পালন করেন মহন্ত রামনাথ সাধু (মদনপুর), হরিলাল রবিদাস (লতিফপুর, বগুড়া), নরেশ রবিদাস (গন্ডগ্রাম, বগুড়া), মহেশ্বর রবিদাস (মাকলান, গোবিন্দগঞ্জ), মহেন্দ্রনাথ রবিদাস (গোবিন্দগঞ্জ), নগেন্দ্রনাথ রবিদাস (জয়পুরহাট), বিশু রবিদাস (রামচন্দ্রপুর, বগুড়া), লালমোহন রবিদাস (পলাশবাড়ী), লালচাঁন রবিদাস (বাবুপুকুর, ঘোড়াঘাট), শুটকু রবিদাস (সাদুল্ল্যাপুর, গাইবান্ধা), জগেশ্বর রবিদাস (সৌর মসজিদ, ঘোড়াঘাট), রাজেন রবিদাস (পাঁচবিবি, জয়পুরহাট) প্রমুখ।

ধর্মীয় আলোচনায় অংশ নেন মহন্ত বীরবল রবিদাস মাস্টার (গাইবান্ধা), মহন্ত দেবিলাল রবিদাস (পলাশবাড়ী), আমরা রবিদাস সন্তান এর ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মিলন রবিদাস (ফুলছড়ি) সহ বিভিন্ন জেলা/উপজেলা থেকে আগত সন্ত, মহন্ত, ধর্মগুরুবৃন্দ।

গুরু রবিদাসজীর উপর ভক্তিমূলক ভজন-সঙ্গীত পরিবেশন করেন গাইবান্ধা সুবাস রবিদাস ও ঘোড়াঘাটের আরতী রানী রবিদাস এবং তাদের দল। উল্লেখ্য, অনুষ্ঠানমালার শুরুতে (১৯.০২.২০১৯) সকাল ১১ টায় গুরু রবিদাসজীর আসন স্থাপন, দুপুর ২.১৫ হতে রবিদাসজীর উপর লীলা কীর্ত্তন পালা অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানমালার ২য় দিন (২০.০২.২০১৯) সকাল ৮.৩০ টায় রবিদাসদের বাদ্যযন্ত্র ঢোলক, খঞ্জরী ও ঝালের সমন্বয়ে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলার কাদিমনগর থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে। এছাড়াও সকাল ৯টায় প্রসাদ বিতরণ ও দুুপুরে সাংগঠনিক বিষয়ে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

মহাসমাবেশে বক্তাগণ বলেন, “রবিদাসদের মাথা উচু করে বাঁচতে হবে। সেই পথ উন্মোচন করে দিয়ে গেছেন সন্ত গুরু রবিদাসজী। আমরা বাবাসাহেব আম্বেদকর, জগজীবন রাম, মায়াবতী সহ এই সম্প্রদায় হতে উঠে আসা আলোকিত জনদের অনুসরন করতে পারি। তারা পারলে আমরা কেন নই। বাংলাদেশের প্রায় ৮ লক্ষাধিক রবিদাস জনগোষ্ঠীর প্রানের ১১ দফা দাবীতে বিআরএফ যে ধারাবাহিক কর্মসূচি নিয়ে এগুচ্ছে, তা সত্যিই প্রসংশার দাবী রাখে। আমাদের সবার উচিত হবে এই মহতি উদ্যোগকে সাধ্যমতো সহযোগীতা করে অংশীদার হওয়া। বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মসূচির আওতায় রবিদাস সহ আদিবাসী, দলিত ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন হচ্ছে। এজন্য সরকারকে সাধুবাদ ও কৃতজ্ঞতা। কিন্তু সংসদে রবিদাস জনগোষ্ঠীর প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করা গেলে এই জনগোষ্ঠীর সত্যিকার উন্নয়ন হতে পারে। এজন্য সরকার সহ সংশ্লিষ্টদের সার্বিক সহযোগিতা জরুরী।”

*

*

Top