Bhalukanews.com

নজিপুরে পৌর আইন অমান্য করে ভবন নির্মানের ঘটনায় পৌর মেয়রকে লাঞ্চিত, এলাকায় চরম উত্তেজনা

ব্রেলভীর চৌধুরী, নওগাঁ জেলা প্রতিনিধিঃ নওগাঁর পত্নীতলায় উপজেলা সদর নজিপুর পৌরসভা এলাকায় পৌরসভার আইন অমান্য করে ভবন নির্মানের ঘটনায় বৃহস্পতিবার পৌরসভা থেকে কাজ বন্ধের নির্দেশ দিলে পৌর মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী বাবু সহ পৌর কর্মচারী আব্দুল লতিফকে আহত করেছে জনৈক জয়নাল আবেদীন বাবু নামের এক ব্যক্তি। এঘটনায় পুলিশ জয়নাল আবেদীন বাবুকে আটক করেছে। এ নিয়ে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

 

আটক জয়নাল আবেদীন বাবুর বাড়ি আত্রাই উপজেলায়। তার বাবার নাম হাকিম উদ্দীন প্রামানিক। জয়নাল আবেদীন বাবু দীর্ঘদিন যাবৎ নজিপুর ঠুকনিপাড়া চকনিরখীন এলাকার একটি ইটভাটার ম্যানেজারের দায়িত্বে রয়েছে।

 

জানাগেছে, নজিপুর পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের ঠুকনিপাড়া চকনিরখীন মোড় এলাকায় ধামইরহাট আড়ানগর এলাকার জাহাঙ্গির আলমের ছেলে জনৈক হাবিবুর রহমান নামের এক ব্যক্তি পৌরসভার আইন অমান্য করে ভবন নির্মান করতে থাকে। সেখানে তার পাশ্ববর্তী জমির মালিকরা পৌরসভার আইন না মেনে ঐ ভবন নির্মান হচ্ছে বলে পৌরসভায় অভিযোগ করলে পৌরসভা থেকে অভিযোগের প্রেক্ষিতে কয়েক দফা ঐ ভবনের মালিক হাবিবুর রহমানকে পৌর আইন মেনে ভবন নির্মান করতে নির্দেশ দিলেও তা অমান্য করে জোড় পূর্বক ইচ্ছাস্বাধীন ভাবে সে ঐ ভবনের কাজ করতে থাকে।

 

এঅবস্থায় বৃহস্পতিবার সকাল আনুঃ ১০টায় নজিপুর পৌরসভার মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী বাবু নিজেই পৌরসভার কর্মকর্তা, কর্মচারীদের নিয়ে ঐ ভবন পরিদর্শন করেন এবং পৌর আইন না মানায় ভবনের কাজে নিয়োজিত মিস্ত্রিকে কাজ করতে নিষেধ করে দেন। ভবনের কাজ করতে নিষেধ করায় ভবন মালিক হাবিবুর রহমানের পক্ষে জয়নাল আবেদীন বাবু নামের এক ব্যক্তি ক্ষিপ্ত হয়ে পৌর মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী বাবুকে গালিগালাজ ও শারীরিক ভাবে লাঞ্চিত করে। এসময় পৌর কর্মচারী জনৈক আব্দুল লতিফ এগিয়ে গেলে তাকেও জয়নাল আবেদীন আহত করলে আহত আব্দুল লতিফ সহ পৌর মেয়রকে তাৎক্ষনিক উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে চিকিৎস্যার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। এঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা সৃষ্টি হলে পত্নীতলা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে জয়নাল আবেদীনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

 

এব্যাপারে পত্নীতলা থানার অফিসার ইনচার্জ পরিমল কুমার চক্রবর্তী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান উক্ত ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে জনৈক জয়নাল আবেদীন বাবুকে আটক করা হয়েছে।

 

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছিল। এদিকে আইন অমান্য করে ভবন নির্মানের ব্যাপারে এবং মেয়র সহ পৌর কর্মচারীকে আহত করার ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে পৌরসভা সুত্রে জানাগেছে।

*

*

Top