Bhalukanews.com

কাউন্সিলের নিরাপত্তায় সোয়াটসহ ১০ হাজার পুলিশ

ভালুকা নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে আগামী রোব ও সোমবার। কাউন্সিলকে কেন্দ্র করে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা করা হয়েছে। সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও এর আশপাশের এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর মোট ১০ হাজার সদস্য মোতায়েন থাকবে। এছাড়া সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের নিরাপত্তার নির্দেশনা দেবে স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স (এসএসএফ)।বুধবার বিকেলে উদ্যানের নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঘুরে দেখেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া ও র্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ। কাউন্সিলের নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সমন্বিতভাবে প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে বলে জানান তারা।আওয়ামী লীগের এ জাতীয় কাউন্সিল ঘিরে বিভিন্ন নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যে রয়েছে-

অননুমোদিতদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা
আগামী শুক্রবার (২১ অক্টোবর) থেকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের নিরাপত্তার দায়িত্ব নেবে ডিএমপি। সেদিন থেকে অনুমোদিত ব্যক্তি ছাড়া কাউকে ভেতরে ঢুকতে দেয়া হবে না।

সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন ও কন্ট্রোল রুম
সোহরাওয়ার্দী উদ্যান, শাহবাগ ও এর আশপাশের এলাকায় সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। এগুলোর ফুটেজ পর্যবেক্ষণের জন্য তিনটি কন্ট্রোলরুম স্থাপন করা হবে। এছাড়া থাকবেন ৩ জন আইটি এক্সপার্ট।

৭টি আর্চওয়ে গেট
কাউন্সিলকে কেন্দ্র করে উদ্যানে প্রবেশের জন্য ৭টি প্রবেশমুখেই আর্চওয়ে গেট স্থাপন করা হবে। পুলিশ সদস্যরা মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে আগতদের দেহ তল্লাশি করবেন।

উদ্যানে প্রবেশে শিখা চিরন্তনের গেট দিয়ে প্রধানমন্ত্রীসহ ভিভিআইপি ও ভিআইপিরা গাড়িসহ প্রবেশ করবেন। এছাড়া ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটের গেট দিতে বিভিন্ন জেলার সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকরা গাড়ি রেখে প্রবেশ করবেন। তাদের জন্য বিমানবন্দরের মতো স্যাটেল বাসের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এসব বাস যোগে তাদের গেট থেকে মঞ্চে নেয়া হবে।

সোয়াট ও ডগ স্কোয়াড
কাউন্সিলের নিরাপত্তায় ডিএমপির পুলিশ ছাড়াও পুলিশের বিশেষায়িত বাহিনী স্পেশাল ওয়েপুন অ্যান্ড ট্যাক্টিক্স (সোয়াট) টিম, স্পেশাল ব্রাঞ্চ (এসবি), র্যাবের ডগ স্কোয়াড থাকবে। শুক্রবার (২১ তারিখে) দায়িত্ব নেয়ার পরই ডিএমপি সমস্ত উদ্যানে ডগ স্কোয়াড দিয়ে তল্লাশি করবে।

ব্যাগ-অস্ত্র বহনে নিষেধাজ্ঞা
উদ্যানে যেকোনো ধরনের ব্যাগ, পোটলা, ধারলো অস্ত্র, দাহ্য পদার্থ ও লাইসেন্স করা অন্ত্র নিয়েও প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।ডিএমপি কমিশনার বলেছেন, পুলিশ ও অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ছাড়াও কাউন্সিলের নিরাপত্তায় যুবলীগ, আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগের স্বেচ্ছাসেবকরা একসঙ্গে কাজ করে নিরবিচ্ছিন্ন এবং সুদৃঢ় নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করবে।
এছাড়া কাউন্সিলের দিন রাজধানীর কয়েকটি সড়ক বন্ধ থাকবে। ফলে নগরবাসীর সাময়িক অসুবিধার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন ডিএমপি কমিশনার।

 

*

*

Top