Bhalukanews.com

ময়মনসিংহে সহপাঠী হত্যা মামলার মূল আসামি গ্রেফতার

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি: ময়মনসিংহ শহরের কেওয়াটখালী রেলওয়ে উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনির ছাত্র রাশিদুজ্জামান লিয়ন হত্যাকাণ্ডের মূল হোতা সহপাঠী সোহানুর রহমান সোহানকে (১৫) গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১৪। মঙ্গলবার (২২ নভেম্বর) রাতে শহরতলী দিঘারকান্দা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এর আগে হত্যার পর পালিয়ে যাওয়ার সময় মঙ্গলবার বিকেলে ত্রিশাল উপজেলার ঝিলকি নামকস্থান থেকে সাকিবুল হাসান সাকিব নামে আরেক সহপাঠীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ নিয়ে চাঞ্চল্যকর লিয়ন হত্যাকাণ্ডে জড়িত ৪ আসামির মধ্যে দুইজনকে গ্রেফতার করা হলো।

এদিকে বুধবার সকালে কেওয়াটখালী রেলওয়ে উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে রাশিদুজ্জামান লিয়নের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। পরে জানাজা শেষে স্কুলের বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা হত্যাকারীদের বিচরণস্থল কেওয়াটখালী রেলওয়ে কলোনির বেশ কয়েকটি বাসা ও স্কুলের সামনের সড়কে ৮-১০টি অটোরিক্সা ভাংচুর করে। এ সময় তারা খুনি নাইম ও জয়কে অবিলম্বে গ্রেফতার ও তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করে।

প্রেমঘটিত বিরোধের জেরে মঙ্গলবার সকালে সহপাঠী ৪ বন্ধু স্কুলের সামনে বাকবিতণ্ডা ও হাতাহাতির একপর্যায়ে পিঠে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে কেওয়াটখালী রেলওয়ে উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র রাশেদুজ্জামান লিয়নকে। ছুরিকাঘাতে লিয়নের ফুসফুস ছিদ্র হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায় সে। লিয়নের বাবা মালয়েশিয়া প্রবাসী এবং মা রাশেদা আক্তার বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়সংলগ্ন হর্টিকালচার সেন্টারে কর্মরত। ঘটনার পর মা রাশেদা আক্তার বাদী হয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় লিয়নের সহপাঠী একই স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্র শহরতলী দিঘারকান্দা এলাকার মৃত সুরুজ আলীর ছেলে সোহানুর রহমান সোহান (১৫), কেওয়াটখালী এলাকার মো. কামাল হোসেনের ছেলে মো. নাইম (১৫), কেওয়াটখালী পাওয়ার হাউজ কলোনির মো. জব্বারের ছেলে সাকিবুল হাসান সাকিব (১৫) ও কেওয়াটখালী রেলওয়ে কলোনির হাতেম আলীর ছেলে জয়কে (১৫) আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

*

*

Top