Bhalukanews.com

নাসিক নির্বাচন:- ১৬৩ ভোট কেন্দ্রে ৪৬৩৬ পর্যবেক্ষক

33116-nasik

নারায়নগঞ্জ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনে রেকর্ড পরিমানে পর্যবেক্ষক আবেদন করেছে। ১৬৩ টি ভোট কেন্দ্রে বিপরীতে ৪৬০০ জন পর্যবেক্ষনের কার্ড চেয়েছেন। এরফলে কেন্দ্র প্রতি ২৮ জনেরও বেশি সাংবাদিক পর্যবেক্ষনে থাকছেন। সংশ্লিষ্ঠরা বলেছেন, একটি সিটি কর্পোরেশনে এত সাংবাদিক পর্যবেক্ষনে গেলে ভোট কেন্দ্রে ভোটারের চেয়ে সংবাদিক বেশি দেখা যাবে । ভোটাররা ভোট দিতে বাধার সম্মুখিন হবেন।

নির্বাচন কমিশন সূত্র জানায়, নাসিক নির্বাচনে ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ জেলা অফিস মিলে ২৮টি ইলেট্রনিক মিডিয়া ১৩০০টি পর্যবেক্ষন কার্ড নেওয়ার জন্য আবেদন করেছেন, আর ৯৩টি দৈনিক ও সাপ্তাহিক পত্রিকা মিলে কার্ডের জন্য আবেদন করেছে ২১১৪টি, ১১২ টি অনলাইন পত্রিকা ৯০০ টি সাংবাদিক কার্ডের জন্য আবেদন করেছেন। তবে এর সংখ্যা ভোটের আগের দিন বাড়তে পারে। এছাড়া নির্বাচনে ৩২০ দেশি ও বিদেশী দুই জন পর্যবেক্ষক থাকবেন।

নাসিক নির্বাচনে মেয়র পদ ছাড়াও ২৭টি সাধারণ ও ৯টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এতে মোট ৪ লাখ ৭৯ হাজার ৩৯২ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ পাচ্ছেন। এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ৪১ হাজার ৫১৪ জন এবং নারী ভোটার ২ লাখ ৩৭ হাজার ৮৭৮ জন। ভোটগ্রহণ করা হবে ১৬৩টি কেন্দ্রে ও ১২১৭টি ভোটকক্ষে। নির্বাচনে মোট ১৬৩ প্রিজাইডিং কর্মকর্তা, ১২১৭ সহকারী প্রিজাইডিং কর্মকর্তা ও ২৪৩৪ জন পোলিং কর্মকর্তা নিয়োজিত থাকবেন।

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে ঘিরে কালো টাকার বিস্তার ও প্রভাব খাটানো নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করছে প্রার্থীদের অনেকে। তবে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ঠিক রাখতে প্রার্থীদের আশ্বস্তও করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ। এ নগরে দ্বিতীয়বারের মতো মেয়র নির্বাচনে যাওয়া নগরীকে ‘অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত’ হিসেবে উপস্থাপন করতে চান বলেও জানান তিনি। দলভিত্তিক প্রথম সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে ৭ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৫৬ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৩৮ জন প্রতিদন্দ্বিতায় রয়েছে। এদিকে ২৮ ডিসেম্বর ৬১ জেলায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে জেলা পরিষদ নির্বাচন।

ইসির সহকারি জনসংযোগ পরিচালক আশাদুল হক ভালুকা নিউজকে জানান, প্রথমবারের মতো জেলা পরিষদের নির্বাচন পর্যাবেক্ষণে ৮টি সংস্থার ৩ হাজার ২২৫ জন পর্যবেক্ষক থাকছে। এর মধ্যে আসক ফাউন্ডেশন সর্বোচ্চ আড়াই হাজার পর্যববেক্ষক রাখবে স্থানীয় পর্যায়ে। এছাড়া জানিপপ তিন শতাধিক পর্যবেক্ষক রাখার কথা জানিয়েছে।

ইসির জনসংযোগ পরিচালক এস এম আসাদুজ্জামান ভালুকা নিউজকে জানান, পর্যবেক্ষক সংস্থাগুলো প্রতি দলের সর্বোচ্চ ৫ জন করে ভ্রাম্যমান হিসেবে ভোট পর্যবেক্ষণ করবে। কোনো কেন্দ্রে বা বুথে স্থায়ীভাবে কোনো পর্যবেক্ষক অবস্থান করতে পারবে না। সংশ্লিষ্ট প্রিজাইডিং কর্মকর্তার অনুমতি সাপেক্ষে স্বল্প সময়ের জন্য ভোট কক্ষে প্রবেশ করতে পারবে।

*

*

Top