Bhalukanews.com

কবিতা articles

প্রকৌশলী মুহা. মাহবুবুর রহমানের দু’টি কবিতা

প্রকৌশলী মুহা. মাহবুবুর রহমানের দু’টি কবিতা

১. মুজিবকে দেখিনি মুজিব তুমি ঘুমিয়ে আছ টুঙ্গী পাড়ার ছোট্ট ঘরে, তোমায় আমি দেখিনি – আজও তোমায় মনে পড়ে। তোমায় আমি দেখিনি – আজও শুনছি তোমারই বলিষ্ঠ কন্ঠস্বর, যখনই শুনি তোমারই কন্ঠ মনে হয় তখনই করে ফেলি ঘাতকদের লন্ডবন্ড। যখনই দেখি তোমারই ছবি তোমারই শ্রদ্ধায় অশ্রু সিক্ত তখনই আমি একজন নিরব কবি। দিয়েছ তুমি বাংলার

বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত শরীফ মল্লিকের দু’টি কবিতা

জন্ম ইতিহাস পাড়াগাঁয়ে জন্ম নেওয়া খোকারাও একদিন স্পষ্টবাদী নেতা হতে পারে জন্ম ইতিহাস পড়ে আমিও জেনেছি এই কথা সেই টুঙ্গিপাড়া থেকে একটা কিশোর হাটতে হাটতে একদিন খোকা থেকে কিভাবে মুজিব হলো ইতিহাসের পাতায়  লেখা আছে সেই কথা লেখা আছে ছিষট্টি এবং উনসত্তরের কথা লেখা আছে রেসকোর্স এবং বজ্রকন্ঠের কথা লেখা আছে স্বাধীনতা এবং সংগ্রামের কথা

আবুল বাশার শেখ এর তিনটি কবিতা

না বলে না বলে যদি চলেই যাবে তবে কেন ভালবেসে ছিলে? হৃদয় ভাঙ্গা সুর বড় কষ্টের আলো নয় অন্ধকার দিলে। হৃদয়িক ভালবাসা কাছে আসা সবই ছিল যে অভিনয়, নষ্টামির কষ্টগুলো এলোমেলো কিছু সত্য কিছু মিথ্যে হয়। জীবন সাজানো স্বপ্ন রাঙা ভোর আসবেনা বুঝি এ জীবনে, আশা নয় বিশ্বাস পাব তোমাকে মরণের অন্য এক ভূবনে। সে

 তরুণ কবি শরীফ মল্লিক-এর একগুচ্ছ কবিতা

ইচ্ছে করলেই* ইচ্ছে করলেই একজন সুজন দার সাথে বছরের পর বছর এক শহরে থেকেও দ্যাখা করা যায় না অথবা একজন হেলাল হাফিজের সাথে দ্যাখা করার সময় হয়ে উঠে না   ইচ্ছে করলেই তুলি আপুকে বলা যায় না মিস ইউ আপু ভীষণ মিস করি তোমায়   ইচ্ছে করলেই শ্যামাকে ফিরিয়ে আনা যায় না ঝুমাদের ছেড়ে দেওয়া

আমার বাবা:: সফিউল্লাহ আনসারী

  বাবা আমার হাতটি ধরে সামনে চলার ইচ্ছে জাগায় প্রাণে বাবা থাকেন ছন্দ এবং নিয়মসুচির বাস্তবতার ঘ্রাণে। শিশু কিশোর দিনগুলিতে বাবা থাকেন ভরসা হয়ে সাথে হাতটি থাকে শক্ত বাঁধন অটুট চলার পথে সদাই দিনে রাতে। সাহস জোগান সুদৃঢ় বিশ্বাসে জীবন ভরান ছন্দ এবং সুরে শতেক দুখেও আমার বাবা কভু আমার থেকে যাননি সরে দুরে। বয়েস

আশার আলো

—– আবুল বাশার শেখ পথের শেষতো হলোনা তবুও শুধু এগিয়ে চলা, কারও কথা কেউ শোননা তবুও হচ্ছে বলা। রং বদলায় সকাল বিকেল রঙিন রাতের কালো, জীবন জানি তিক্ত এখন আশায় দেখি আলো। জীবন থেকে হারিয়ে গেল অনেক বছর ওরে, নতুন দিনে নতুন নিয়ে সাজানো আমার ঘরে। ০১-৬-২০১৬

পহেলা বৈশাখ

আবুল বাশার শেখ বাংলা নববর্ষ বলি আনন্দ উৎসবে চলি, হৃদ মাঝে স্বপ্ন বুনি রঙ বেরঙের হুলি। পহেলা বোশেখ হাসি খুশি মন, ছেলে আর বুড়ো মিলনের ক্ষণ। রমণীর সাঁজ গান উৎসব, চারদিকে তাই শুধু কলরব। গ্রাম্য মেলা শহুরে খেলা, মিলে মিশে শুধুই চলা। তবুও বৈশাখ বাংলার ঘরে ঘরে, আনন্দ উৎসবে টিকে আছে যুগ ধরে। ছোটদের বড়দের

নিশাচর পথিক

_____________হাসনা হেনা গুমোট আঁধারে দিকশূন্য উড়ে অস্তিত্বের চিত্রাবলী , এ যেন অলৌকিক অবিশ্বাস্য ! তারাদের ঘুমগোলিতে ল্যাম্পের নিভু আলো, হলদে রাঙ্গা পথে নিভৃতে পথিক চলে , ভেতরে বেঁচে থাকা এক পরিচিত হেয়ালী পৃথিবী তে। সেই যে – ভুল করে একদিন ব্যাকুল চিত্তে পথিক গিলে ছিলো ভালোবাসার হেমলক ! সেই থেকে, বিষাদের নীলাভ বিষে পুড়ছে পথিকের

তুমি যখন আমার ছিলে-সফিউল্লাহ আনসারী

তুমি যখন আমার ছিলে;আমিই ছিলাম বেজায় প্রেমিক;মাতাল কবি ছিলাম আমি। তুমি যখন আমার ছিলে ! এখন তা সব অন্যরকম;কেনো হলো এমন হলো !কোন কারনে আমি এখন তোমার থেকে দুরে অনেক;অনেক দূরে । আমি আমি তেমনি তোমার;প্রেমিক পাগল দ্ধন্ধ ভূলা ছন্দ কবি ! আগের মতোই পংক্তি সাজাই মূর্ছনাতে হৃদয় বাজাই;কষ্টে দারুন সময় কাটাই তোমার নামেই পুঁজোর

নিতান্তই ক্ষুদ্র স্বপ্ন

— সেলিনা জাহান প্রিয়া আমি নিতান্তই ছোট মানুষ। আমার স্বপ্নগুলোর আকারও আমার মতোই ক্ষুদ্র। তুমি বললে বলেই আমারা স্বপ্নরা কিন্তু মিছে হবে না আমার কোনো স্বপ্ন নাই! তুমি বললে আমি শুনে খুশি হলাম- সুদূর পরাহত আমারও একটা স্বপ্ন আছে, সবাই যখন ঘুমিয়ে পড়ে, নিঝুম রাতে আকাশ গাঙ্গে ভেসে যায়, মেঘের ভেলা। রাতের আকাশ আমার স্বপ্ন