চট্টগ্রামবিভাগীয় খবর

চাঁদপুরে এক বধূর দুই স্বামী

জেলা প্রতিনিধি: চাঁদপুর লঞ্চঘাটের ভোর বেলা এক তরুণীকে নিয়ে টানা হেঁচড়া করছেন দুই তরুণ। দুইজনই তরুণীকে নিজের স্ত্রী বলে দাবি করছেন। এক পর্যায়ে তরুণীর হাত ছেড়ে দিয়ে দুজনে লিপ্ত হয় মল্লযুদ্ধে। বেশ কিছুক্ষণ ধরে চলে সে যুদ্ধ। এরমধ্যে লোকজন এসে ঘিরে ধরে দৃশ্য উপভোগ করতে থাকে।

নৌ পুলিশ সদস্যরা খবর পেয়ে সেখানে যায়। দেখতে চায় তাদের বিয়ের কাগজপত্র। কিন্তু কেউই কাবিননামা দেখাতে পারে না। অবশেষে বৃহস্পতিবার দুপুরে তাদের তিনজনকেই পাঠানো জেলে পাঠানো হয়।বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) দিনগত রাত সাড়ে ৩টায় চাঁদপুর লঞ্চঘাটে এ দৃশ্য দেখা গেছে। গৃহবধূর নাম খাদিজা বেগম(২৩)। তিনি বরিশালের বাসিন্দা। স্বামী দাবি করা দুজন তরুণ হলেন- তোফায়েল ও শহিদুল ইসলাম।

সূত্রমতে, বছর সাতেক আগে খাদিজার সঙ্গে বিয়ে হয় শহীদুল ইসলামের। তাদের সংসারে রয়েছে তিন বছরের একটি মেয়ে। তবে উভয়ের মধ্যে বনিবনা না হওয়ায় এক পর্যায়ে শহিদুল তার মেয়েকে নিজের কাছে রেখে স্ত্রীকে বাবার বাড়ি পাঠিয়ে দেন।

গত দুই বছর ধরে স্ত্রীর কোনো খোঁজ-খবর না নেয়ায় খাদিজা তার স্বামী শহিদুলকে তালাকনামা পাঠিয়ে দেন। এরপর তোফায়েল নামে আরেকজনের সঙ্গে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন।

গত বুধবার রাতে খাদিজা ও তোফায়েল বরিশাল থেকে চাঁদপুর লঞ্চঘাটে এসে পৌঁছালে হঠাৎ দেখা হয়ে যায় আগের স্বামী শহিদুল ইসলামের সঙ্গে। তখন শহিদুল তার স্ত্রী দাবি করে খাদিজাকে তার সঙ্গে যাওয়ার জন্য টানা-হেঁচড়া শুরু করে। এতে বাধা দেন খাদিজার বর্তমান স্বামী তোফায়েল। শুরু হয় হাতাহাতি।

এক পর্যায়ে খবর পেয়ে নৌ পুলিশ তাদের তিন জনকেই আটক করে চাঁদপুর মডেল থানায় পাঠায়। মডেল থানা পুলিশ তাদের বিয়ের কাগজপত্র দেখতে চায়। কিন্তু কেউই তা দেখাতে না পারায় পুলিশ তাদের আদালতে পাঠিয়ে দেয়। পরে আদালত তাদের তিনজনকেই কারাগাে পাঠানোর নিদের্শ দেয়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button